স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও সড়ক পথ বঞ্চিত রয়েছে রতনশ্রী গ্রাম : শওকত হাসান

বাংলাদেশ সিলেট

 

সিলেট বিভাগের হাওর বেস্টিত জনপদ সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর সদর উপজেলার পাশের গ্রাম রতনশ্রী। উপজেলা সদরের মাঝখান দিয়ে বৌলাই নদী বয়ে পৃথক করেছে গ্রামটিকে অন্য পাশে বিশাল মাটিয়ান হাওড়। এমনি অবস্থা বিরাজ করছে সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড রতনশ্রী গ্রাম।
রতনশ্রী গ্রামের বাসিন্দা আবু সুফিয়ান টিপু জানান উক্ত গ্রামে বসবাসরত জনসংখ্যা প্রায় ৩০০০ হাজারের মতো, এতে ভোটার প্রায় ১৫০০ জন। স্বাধীনতার ৫০ বছর অতিক্রম হওয়ার পর বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নের পদক্ষেপ গ্রহন করা হলেও নেয়া হয়নি রতনশ্রী গ্রামের সড়ক পথের উন্নয়নের উদ্যোগ। উপজেলা সদরের পাশে অবস্থান হলেও দায়িত্বহীনতার কারণে গ্রামটিতে সড়ক পথের কোন উন্নয়ন হয়নি। ফলে গ্রামবাসীর মধ্যে বিরাজ করছে চরম ক্ষোভ।

বিশ্বের যে কোন দেশে অর্থনৈতিক উন্নয়নে যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক প্রয়োজন। ধর্মীয় জ্ঞান অর্জনে মসজিদ, মাদ্রাসার প্রয়োজন। শিক্ষা অর্জনের জন্য এই গ্রামে ২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে, পূর্ব পাড়ায় ১টি বিদ্যালয় (ছাত্র-ছাত্রী মোট ১৭৭ জন) এবং পশ্চিম পাড়ায় ১টি বিদ্যালয়ে (ছাত্র-ছাত্রী মোট ১৫৭ জন), রতনশ্রী পশ্চিম হাটিতে ১টি নুরানি হাফিজিয়া মাদ্রাসা রয়েছে। গ্রামের প্রায় ১০০ টি পরিারের সন্তান বর্ষার ৬ মাস বিদ্যালয়ে, মাদ্রাসায় যেতে পারেনা সড়ক ব্যবস্থা না থাকার ফলে। গ্রামটির নদীর তীরে অবস্থান হওয়ার ফলে নদীর ওপর পাশে রয়েছে উপজেলা সদর,উপজেলা প্রশাসন অফিস, রয়েছে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়,বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, রয়েছে একটি সিনিয়র আলীম মাদ্রাসা। ছোট শিশুরা বর্ষায় নৌকা যোগে উপজেলা সদরে উচ্চ বিদ্যালয়ে, মাদ্রাসা ও কলেজে যাওয়া বেশ কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়ে। যোগাযোগ ব্যবস্থার অবনতির ফলে গ্রামের স্কুলে যাওয়া শিশু গুলো কোন না কোন ক্লাসে ঝড়ে পড়ে। শুষ্ক মৌসুমে ৬ মাস বিদ্যালয়ে গেলেও বর্ষাকালে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়। অনেক পিতা মাতা বর্ষাকালে তাদের সন্তানদের স্কুল,কলেজ,মাদ্রাসা ও বিদ্যালয়ে পাঠাতে অনীহা প্রকাশ করেন এবং পাঠালেও আতংকে থাকেন কখন কি দূর্ঘটনা ঘটে।
সড়ক পথের অনুন্নতির ফলে প্রভাব পড়ছে শিক্ষা, স্বাস্থ্য প্রভূতি ক্ষেত্রে।
গ্রামবাসী দীর্ঘ দিন যাবত সড়কপথের দাবি জানিয়ে আসছে কিন্তু কর্তৃপক্ষের গাফেলতির কারনে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে গ্রামের জনগন। উপজেলার অনেক ইউনিয়নেই সড়ক পথে যাতায়াত করছে লোকজন। কিন্তু উপজেলা সদরের পাশেই একটি গ্রামকে উন্নয়ন বঞ্চিত করে রাখা হয়েছে যুগ যুগ ধরে। ব্যবসা-বাণিজ্য, চিকিৎসা সেবা, অফিস-আদালত সব কিছুতে যেতে হলে নৌকাই একমাত্র ভরসা। গত ৭ বছর পূর্বে বৌলাই নদীতে একটি থানার সম্মুখে ব্রীজ হলেও রতনশ্রী গ্রামের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় এ ব্রীজটি ব্যবহার করা হচ্ছেনা। অথচ এই গ্রামেই একমাত্র গ্রাম উপজেলা সদরের পাশে। মানুষের জীবনমান উন্নয়নের জন্য শিক্ষা আর শিক্ষা অর্জনের জন্য ঘর থেকে বের হলেই রাস্তার প্রয়োজন। উন্নয়নের তালিকায় সরকারী ভাবে রতনশ্রী গ্রামে রাস্তার ব্যবস্থা করা হলে গ্রামের শত শত পরিবার,শিশু-বৃদ্ধ,না­রী-পুরুষ সবাই শিক্ষা,স্বাস্থ্য, অর্থনীতি সর্ব ক্ষেত্রে দুর্ভোগ লাগব হবে। স্থানীয় জনগন এ নিয়ে বিবেচনা করলে সড়ক পথে এলাকার হাজার মানুষের জীবন মান উন্নয়ন হবে।
প্রকৃত সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে গ্রাম হবে শহরায়ন! হাতের নাগালে থাকবে সকল সুযোগ সুবিধা চান রতনশ্রী গ্রামের জনগণের তাই উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয়ের কাছে ও স্থানীয় যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে বিনীত অনুরোধ অবহেলিত গ্রামের রাস্তা করার পদক্ষেপে যেন আপনাদের সদয় দৃষ্টি পড়ে এবং প্রয়োজনীয় দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

লেখকঃ উন্নয়নকর্মী ও কলামিস্ট।

24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *