যুক্তরাজ্যের সফল ব্যবসায়ী প্রপার্টি টাইকুন স্যার এনাম ইসলামের বাংলাদেশে ১০০০ কোটি টাকার প্রোজেক্ট

Uncategorized

আলীনগর দর্পণ ডেস্ক : সিলেট জেলার ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ ফেঞ্চুগঞ্জে স্যার এনাম ইসলাম ফাউন্ডেশনের নিজস্ব অর্থায়নে এবং ফাউন্ডেশনের নিজস্ব ভূমিতে ১০০০ কোটি টাকার প্রকল্প শুরু হয়েছে। কয়েকটি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন সিলেট ৩ আসনের সংসদ সদস্য জনাব মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি।

প্রকল্পের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলোঃ বহুতলা বিশিষ্ট মসজিদ, হাসপাতাল, শপিং মল, ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার, মহিলা কলেজ এবং ইউনিভার্সিটি, কনভেনশন হল, জিমনেসিয়াম সেন্টার, প্রাইভেট পাওয়ার স্টেশন এবং দুইশত কার পার্কিং সহ দালানকোঠা ইত্যাদি।

প্রকল্পগুলো হলোঃ

১। হাজী আব্দুল জলিল গ্র্যান্ড মস্কঃ অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সহ সম্পূর্ণ কার্পেট সম্বলিত তিনতলা বিশিষ্ট শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মসজিদ। সিলেট জেলার এই বড় মসজিদে একসাথে ৪৬০০ মুসল্লী জামাতের সাথে নামাজ আদায় করিতে পারিবেন এবং মহিলাদের জন্য আলাদা নামাজের ব্যবস্থা রয়েছে।

২। স্যার এনাম ইসলাম ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারঃ সঠিক ইসলামী জ্ঞান এবং কোরআনের সঠিক পর্যালোচনার কথা চিন্তা করে বাংলাদেশে এই প্রথম একটি ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার স্থাপন হতে যাচ্ছে। চারতলা বিশিষ্ট এই সেন্টারে থাকবে ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার, ইসলামিক সেমিনার, হাদিস পর্যালোচনা, মৃতদেহ গোসল করানো এবং সংরক্ষন করার জন্য শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত আধুনিক রেফ্রিজারেটর এর ব্যবস্থা।

৩। স্যার এনাম ইসলাম ফাউন্ডেশন হাসপাতালঃ ঐতিহ্যবাহী ফেঞ্চুগঞ্জে এই প্রথম 250 শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল নির্মাণ হতে যাচ্ছে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত 5 তলা বিশিষ্ট হাসপাতালে অত্যাধুনিক সব ধরনের সুযোগ সুবিধা এবং সুলভ মূল্যে চিকিৎসা ব্যবস্থা থাকবে। কম আয়ের মানুষদের জন্য ফ্রি চিকিৎসা ব্যবস্থা থাকবে।

৪। SIIKI SUMIT অত্যাধুনিক শপিং মলঃ যেখানে ২০০ ফ্রি গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা।১০ তলা বিশিষ্ট এই মলটিতে রয়েছে- শপিং মল, ব্যাংক, বীমা, অফিস, ২৪০০ মানুষ ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন স্যার এনাম ইসলাম কনভেনশন হল এবং স্যার এনাম ইসলাম ওমেন্স কলেজ এন্ড ইউনিভার্সিটি। শুধুমাত্র মহিলাদের জন্য একটি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশে এই প্রথম।

৫। স্বয়ংসম্পূর্ণ পার্কিংয়ের ব্যবস্থা সহ বহুতল বিশিষ্ট আবাসিক ভবন।

৬। এছাড়াও থাকবে স্যার এনাম ইসলাম ফাউন্ডেশন প্রাইভেট পাওয়ার স্টেশন। যেখান থেকে নিরবিচ্ছিন্নভাবে বিদ্যুতের ব্যবস্থা থাকবে।

৭। এবং ফেঞ্চুগঞ্জ কলেজের সন্নিকটে স্যার এনাম ইসলাম ফাউন্ডেশন এর ফাইবার অপটিক ফ্যাক্টরি। যাহাতে চার থেকে পাঁচ শত কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা থাকবে।

প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হওয়ার পর ফেঞ্চুগঞ্জের জন্য তথা বৃহত্তর সিলেটের জন্য একটি মাইলফলক হিসেবে থাকবে।
এই সমস্ত প্রজেক্টগুলো সম্পূর্ণ হলে দক্ষিণ ফেঞ্চুগঞ্জের চিত্র অন্য রূপ ধারণ করবে এবং এই স্যার এনাম ইসলাম ফাউন্ডেশনের অধীনে এগারো শত মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। যাহা বাংলাদেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে সহযোগিতা করবে।
আমরা সর্বোপরি ধন্যবাদ জানাচ্ছি স্যার এনামুল ইসলাম ফাউন্ডেশন এর কর্ণধার এবং প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান স্যার এনামুল ইসলামকে যার অক্লান্ত পরিশ্রমে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে।
তার এই উদ্যোগ নিঃসন্দেহে দেশ এবং দশের জন্য চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে।
আমরা উনার সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘায়ু কামনা করি।

22

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *